চট্টগ্রাম   বুধবার, ৪ আগস্ট ২০২১  

শিরোনাম

ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে ঢুকে পড়েছে ২৩ বন্যহাতি

নিজস্ব প্রতিবেদক    |    ০১:৩১ পিএম, ২০২১-০১-১০

ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে ঢুকে পড়েছে ২৩ বন্যহাতি

কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজারাস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের ভেতর ঢুকে পড়েছে শাবকসহ ২৩টি বন্যহাতি। ক্ষুধার্ত এসব হাতি দুই দলে ভাগ হয়ে পার্কের অভ্যন্তরে বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল উন্নয়নকল্পে সৃজিত ১০০ হেক্টর বাগান তথা চারণভূমিতে অবস্থান করছে। বর্তমানে পার্কের ওই বাগানটিই এখন বন্যহাতির খাবারের এবং চারণভূমির উপযুক্ত স্থান হিসেবে গড়ে উঠেছে। গহীন জঙ্গল থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যা হলে পার্কের ওই বাগানে এসে রাতভর খাবার খেয়ে ভোরের আলো ফুটলেই ফের চলে যাচ্ছে। এভাবে গত একসপ্তাহ ধরে হাতিগুলো পার্কের ভেতর আসা-যাওয়া করছে।
এদিকে পার্কের সীমান্তের ওই বাগানে বন্যহাতি ঢুকে পড়ার খবরে পার্ক কর্তৃপক্ষ রেড অ্যালার্ট জারি করে সেখানে পার্কের কর্মীদের সতর্ক পাহারায় রেখেছেন। যাতে পার্কে আগত পর্যটক-দর্শনার্থীরা ঢুকে পড়া বন্যহাতির অবস্থানের কাছে যেতে না পারে।
পার্ক কর্তৃপক্ষ জানায়, গেল ডিসেম্বর মাসে দুই দফায় ক্ষুধার্ত বন্যহাতির দলটি গহীণ জঙ্গল থেকে সীমান্তবর্তী এলাকায় এসে পার্কে ঢুকে পড়ে। ওইসময় হাতিগুলো দুই দলে ভাগ হয়ে পার্কের অভ্যন্তরে তাÐব চালায়। এসব হাতি পার্কের বন্যপ্রাণী আবাসস্থল উন্নয়নে সুফল প্রকল্পের আওতায় ১০০ হেক্টর এলাকায় সৃজিত পশুখাদ্য বাগানের ব্যাপক ক্ষতি করে। নষ্ট করে দেয় উড়ি আমের ৮ হাজার ৫শ চারা। তখন হাতিগুলো সেখানে প্রায় ৫দিন অবস্থান করেছিল। এর পর ১০টি ও ১৩টি করে দুইদলে ভাগ হয়ে বন্য হাতিগুলো চলে যায় পাহাড়ের দিকে। সেখান থেকে শাবকসহ ১৩টি হাতি চলে যায় সুদূর পার্বত্য বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার রেফারফাঁড়ি এলাকায়। সেখানে বিভিন্ন স্থাপনা ও ফসলী জমিতে ব্যাপক তাÐবও চালায় হাতিগুলো।
পার্কের ভারপ্রাপ্ত তত্ত¡াবধায়ক মো. মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘গেল বছরের ডিসেম্বর মাসের দুইদফায় বন্য হাতিগুলো পার্কের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ে। ওইসময় তারা পশুখাদ্যের বাগানে তাÐবও চালায় এবং বেশ কয়েকদিন অবস্থান করে।
তিনি জানান, একইভাবে হাতির দলটি গত একসপ্তাহ ধরে প্রতিদিন সন্ধ্যা নামলেই পার্কের অভ্যন্তরের পশুখাদ্যের বাগানে ঢুকে পড়ছে। আবার ভোরের আলো ফোটার আগেই গহীন জঙ্গলের নিরাপদ স্থানে চলে যাচ্ছে।
পার্ক কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম আরো বলেন, ‘এভাবে প্রতিদিন যাওয়া-আসা করায় পার্কের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সকর্তাবস্থায় রাখা হয়েছে। যেসব এলাকায় বন্যহাতি অবস্থান করছে সেখানে কিছুদূর পর পর পার্কের কর্মচারীরা অবস্থান নিয়েছে। যাতে পার্কে আগত পর্যটক-দর্শনার্থীরা ভুল করে ওইদিকে যেতে না পারে।’
জানা গেছে, পার্কের সীমান্তবর্তী এলাকায় জেব্রার বেষ্টনীর কাছে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১০০ হেক্টর এলাকায় সৃজন করা হয় পশুখাদ্যের উপযোগী বাগান তথা চারণভূমি। সেখানে রোপন করা হয় প্রায় ১০ হাজার উড়ি আমের চারা। এছাড়াও নেপিয়ার ঘাস, প্যারা ঘাস, শাপলা, বাঁশঝাড়, পিটালি পাতা, বৃদ্ধরী পাতা, মেলোনী পাতাসহ পশুখাদ্যের উপযোগী বিভিন্ন প্রজাতির লতাগুল্মের বাগান। বর্তমানে সেই চারণভূমিই নিরাপদ খাদ্য ভাÐারে পরিণত হওয়ায় বন্যহাতির দলটি প্রতিদিন সন্ধ্যার পর পার্কের অভ্যন্তরে ঢুকছে আর ভোরের আলো ফোটার সাথে সাথে গহীণ জঙ্গলে চলে যাচ্ছে।
পার্কের সীমান্তবর্তী এলাকা কৈয়ারডেবা এলাকার বাসিন্দা আবুল কালাম বলেন, ‘গত একসপ্তাহ ধরে প্রতিদিন সন্ধ্যার পর শাবকসহ ১০টি ও ১৩টি করে দুই দলে ভাগ হয়ে আমাদের বসতবাড়ির কাছের পার্কের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ছে। তবে ভোরের আলো ফোটার পর পরই ফের গহীন জঙ্গলে চলে যাচ্ছে হাতিগুলো। এর পরও বন্যহাতি আসার কারণে প্রতিরাতেই আতঙ্কে রয়েছি আমরা। হারাম হয়ে গেছে আমাদের রাতের ঘুম।’
উল্লেখ্য, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের ফাঁসিয়াখালী বনবিটের আলোচিত উচিতারবিল মৌজাটি ছিল বন্যহাতির অভয়ারণ্য। যেটি বন্যহাতির খাবারের উপযুক্ত স্থান এবং আবাসস্থল ছিল। কিন্তু ওয়ান-ইলেভেনের পর স্থানীয় প্রভাবশালী বনখেকো বন্যহাতির অভয়ারণ্য ধ্বংস ও শতাধিক পাহাড় সাবাড় করে সেখানে গড়ে তোলে অবৈধ ইটভাটা। এ কারণে সংরক্ষিত বনভূমি দখলসহ কয়েকশত বছরের আবাসস্থল ও খাদ্যভাÐার নষ্ট হয়ে যায় বন্যহাতির। এতে খাবারের সন্ধানে বেপরোয়া হয়ে উঠে ক্ষুধার্ত বন্যহাতির পাল। খাবারের সন্ধানে লোকালয়ে নেমে আসলে গত ১০ বছরের বেশিসময় ধরে চলছে মানুষ-হাতির দ্বন্দ্ব।

রিটেলেড নিউজ

বঙ্গোপসাগরে ফিশিং বোটের ইঞ্জিন বিকল, ১৭ জেলে উদ্ধার

বঙ্গোপসাগরে ফিশিং বোটের ইঞ্জিন বিকল, ১৭ জেলে উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক :    বঙ্গোপসাগরে ইঞ্জিন বিকল হয়ে যাওয়া একটি ফিশিং বোট থেকে ১৭ জেলেকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ নৌবা...বিস্তারিত


ঈদগড়ে মুক্তিযোদ্ধার প্রবাসী পুত্রের জমি জবর দখলের অপচেষ্টা

ঈদগড়ে মুক্তিযোদ্ধার প্রবাসী পুত্রের জমি জবর দখলের অপচেষ্টা

মোঃ রেজাউল করিম, সংবাদদাতা, ঈদগাঁও, কক্সবাজার :   ঈদগড়ে মুক্তিযোদ্ধার পুত্র ও রেমিটেন্স যোদ্ধার পৈত্রিক ও দখলীয় জমি জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্...বিস্তারিত


দখলের মাধ্যমে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করা হচ্ছে : সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

দখলের মাধ্যমে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করা হচ্ছে : সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক :   বিশ্ববিদ্যালয় দখল করে নানা একাডেমিক, আর্থিক ও প্রশাসনিক অনিয়মের মাধ্যমে কক্সবাজার ইন্টারন্য...বিস্তারিত


মহেশখালীতে বেড়িবাঁধ ঘেষে বালি উত্তোলন, তলিয়ে যাওয়ার সম্ভবনা শতাধিক বাড়িঘর!

মহেশখালীতে বেড়িবাঁধ ঘেষে বালি উত্তোলন, তলিয়ে যাওয়ার সম্ভবনা শতাধিক বাড়িঘর!

নিজস্ব প্রতিবেদক :   দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর মাতারবাড়ী ও ধলঘাটার জনসাধারণ বেড়িবাঁধ ঘেষে বালি উত্তোলনে চরম নিরাপত্...বিস্তারিত


কক্সবাজারে খাবার নিয়ে বন্যাদুর্গতদের পাশে তরুণরা

কক্সবাজারে খাবার নিয়ে বন্যাদুর্গতদের পাশে তরুণরা

নিজস্ব প্রতিবেদক :   জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুপ প্রভাবে টানা কয়েকদিন ধরে ভারি বর্ষণে কক্সবাজারে সৃষ্ট বন্যার পানি নে...বিস্তারিত


টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নতুন- পুরাতন রোহিঙ্গাদের সংঘর্ষ  থামাতে গিয়ে ১২ এনপিবিএন সদস্য আহত

টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নতুন- পুরাতন রোহিঙ্গাদের সংঘর্ষ  থামাতে গিয়ে ১২ এনপিবিএন সদস্য আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক :   টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নতুন ও পুরাতন রোহিঙ্গাদের রেশন কার্ডকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ...বিস্তারিত



সর্বপঠিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়ায় আন্তর্জাতিক গাড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে চট্টগ্রামের মেধাবী সন্তান প্রিয়ম চক্রবর্তীর যোগদান

ক্যালিফোর্নিয়ায় আন্তর্জাতিক গাড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে চট্টগ্রামের মেধাবী সন্তান প্রিয়ম চক্রবর্তীর যোগদান

আমাদের ডেস্ক : : ডেস্ক রিপোর্ট :: চট্টগ্রামস্থ  লোহাগাড়ার  কৃতি সন্তান প্রিয়ম চক্রবর্তী ক্যালিফোর্নিয়ায় ...বিস্তারিত


সেতু মোটরসের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন ও এমডি আব্দুল কাইয়ুমের  ঈদ শুভেচ্ছা!

সেতু মোটরসের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন ও এমডি আব্দুল কাইয়ুমের ঈদ শুভেচ্ছা!

আমাদের ডেস্ক : : আসন্ন ঈদ উল আযহা উপলক্ষে বাংলাদেশের সর্বস্তরের জনগণকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, সেতু মোটরসের চেয়ারম্...বিস্তারিত



সর্বশেষ খবর